রিজভীর পাশে থাকা কর্মিদের বের করে দিল বিক্ষুব্ধ ছাত্রদল

0
10

কমিটিতে বয়সসীমা তুলে দেয়াসহ বিভিন্ন দাবিতে মঙ্গলবার সকাল থেকেই উত্তপ্ত নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়। তাদের মূল ক্ষোভ কার্যালয়ে অবস্থান করা দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর প্রতি। তাকে কার্যালয় থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করছে বিক্ষুব্ধরা। ছাত্রদল ঢাকা মহানগর পূর্বের সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলাম নয়নসহ কয়েকজন রিজভীর নিরাপত্তায় কার্যালয়ে অবস্থান করছিলেন। বিকালে তাদেরকে মেরে কার্যালয় থেকে বের করে দিয়েছে ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধরা।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকাল ৪টার দিকে বিএনপি কার্যালয়ের মূল ফটকের তালা খুলে ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধরা ভেতরে প্রবেশ করে। কিছু সময় পর ভেতর থেকে রবিউল ইসলাম নয়নের ছয়-সাতজন অনুসারীকে বের করে আনতে দেখা যায়। এসময় বাইরে থাকা নেতাকর্মীরা তাদের কিল ঘুষি লাথি মারেন। সর্বশেষ নয়নকেও বের করে আনা হয়।
মূল গেটের সামনে বিক্ষুব্ধরা নয়নকেও কিল-ঘুষি মারতে থাকে। পরে ছাত্রদলেরই কয়েকজন তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে একটি সিএনজিতে তুলে দেন।
বিক্ষুব্ধরা জানান, নয়ন তার দলবল নিয়ে সকাল থেকে কার্যালয়ে অবস্থানরত দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে পাহারা দিচ্ছিলেন। তাই তাকে বের করে দেয়া হয়েছে।
ছাত্রদলের বিদায়ী কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী মোক্তার বলেন, ‘কার্যালয়কে নিজের ঘর-বাড়ি বানিয়ে রাখা রুহুল কবির রিজভী হঠাৎ করে কমিটি বিলুপ্ত করেন। আমরা বলেছি উনি যেন সম্মানের সঙ্গে এখান থেকে বের হয়ে যান।’
জানা গেছে, আন্দোলনরত ছাত্রদল নেতাকর্মীদের বেশি ক্ষোভ রিজভী আহমদের ওপর। তাকে হাসপাতালে নেয়ার জন্য দুপুরে অ্যাম্বুলেন্সও আনা হয়। যদিও পরে তা খালি পাঠিয়ে দেয়া হয়। দুপুরে কার্যালয়ের বিদ্যুৎ-গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধরা। যেকোনো সময় রিজভীকেও কার্যালয় থেকে বের করে দেয়া হতে পারে বলে ‍গুঞ্জন রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here